1. tistanewsbd2017@gmail.com : Tista24 :
February 27, 2024, 9:17 pm

নীলফামারীতে জমি দখল নিয়ে বিরোধ,শৃংখলা বজায় রাখতে আদালতের আদেশ

Reporter Name
  • Update Time : Monday, January 29, 2024
  • 19 Time View

আল-আমিন, নীলফামারী,

নীলফামারীতে ওয়ারিশ পুত্র শ্রবন প্রতিবন্ধী ছলেমান মিয়ার জমি জোরপূর্বক দখল ও প্রাণে মারার হুমকী প্রদানের ঘটনা ঘটছে।
ঘটনাটি শুক্রবার (১২ জানুয়ারী/২৪) সদর উপজেলার কুন্দপুকুর ইউনিয়নের উত্তর বালাপাড়া এলাকায় তপশীল বর্নিত জমিতে ঘটে। শ্রবন প্রতিবন্ধী ওই এলাকার ছালেহা বেগম ও মৃত জফুর আলী দম্পতির ছেলে।

একই এলাকার মৃত বাবুদ্দী মামুদের ছেলে মোঃ আজাহার আলীর ও তার পরিবারের সাথে দীর্ঘদিন ধরে জমি দখল নিয়ে বিরোধ চলে ছলেমান মিয়ার।
এক পর্যায়ে বিরোধের রেশ বৃদ্ধি পেলে আজাহার আলীসহ আরও ১০ জনের বিরুদ্ধে নীলফামারী অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিষ্ট্রেট আদালতে বাদী হয়ে ফৌঃকাঃবিঃ ১৮৯৮ এর ১৪৪/১৪৫ ধারায় মামলা দায়ের করেন ভুক্তভোগী ছলেমানের মেয়ে মোছাঃ ছালমা বেগম। মামলা নং-পি-৪৭/২৪ ইং।

পরবর্তীতে আদালতের আদেশে ফৌঃকাঃবিঃ ১৮৯৮ এর ১৪৫(১) ধারার বিধান মোতাবেক প্রসিডিং ড্র পূর্বক প্রতিপক্ষের কারণ দর্শাতে বলা হয়েছে। একই সাথে প্রতিপক্ষের দখলের স্বপক্ষে প্রমাণসহ লিখিত বিবৃতি দাখিলের নির্দেশ দিয়েছে।

সেইসাথে আদালত ঘটনার তারিখ এবং ঘটনার তারিখ হতে পূর্ববর্তী ২মাসের মধ্যে ও ঘটনার তারিখের পূর্ববর্তী ২মাসের পূর্বে কে বা কারা দখলে ছিল স্কেচ ম্যাপসহ এবং ঘটনার তারিখে বিদ্যমান দখলকারকে বেদখলের হুমকি দেয়া হয়েছে কি না? কে/কারা হুমকি দিয়েছে,কিভাবে হুমকি দিয়েছে তা তদন্তপূর্বক নালিশী বিত্তের ছবিসহ প্রতিবেদন দেয়ার জন্য সদর এসিল্যান্ড কে বলা হয়েছে।পাশাপাশি নালিশী বিত্তে শান্তি শৃংখলা বজায় রাখার জন্য সদর থানার অফিসার ইনচার্জকে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

মামলার সংক্ষিপ্ত বিবরণীতে জানা যায়, সদর উপজেলার কুন্দপুকুর মৌজার নালিশী তপশীল বর্নিত সি,এস ৪৬১, এস,এ ৪৯৫,বি,এস ১০৬ ও বি,এস ১০৯৪  নং খতিয়ান ভুক্ত নালিশী ৪৩৫৬ দাগে ১৯ শতাংশের মধ্যে ১১ শতাংশ নালিশী ৩৮৩১ দাগে ৩৮ শতাংশ ও ৩৮৩২ দাগে ৪০ শতাংশ,৬১৯২ দাগে ১৯ শতাংশের মধ্যে ১১ শতাংশ এবং ৫৭৯৩ দাগে মোট ৭৮ শতাংশ একুনে ৯৭ শতাংশ জমি সহ বে-নালিশী কতক দাগের মোট ২৭৮ শতাংশ জমির মালিক ছিলেন লালন মামুদ। তার মৃত্যুর পর ওয়ারিশ সূত্রে এক স্ত্রী সাজু বিবি ও এক নাবালিকা কন্যা ছালেহা বেগম উক্ত জমি প্রাপ্ত হন। কিন্তু কন্যা নাবালিকা হওয়ায় মাতা সাজু বিবি ভোগদখল করেন।
পরবর্তীতে এস,এ রেকর্ড আমলে উক্ত জমি নালিশী এস,এ ৪৯৫ খতিয়ানে সাজু বিবির নামে লিপিবদ্ধ ও প্রচারিত হয় এবং ভোগদখলীয় অবস্থায় তিনি বাবদ্দি মামুদের সাথে দ্বিতীয় বিবাহে আবদ্ধ হন। সেখানে ঘর-সংসারকালে মোঃ আজাহার আলীর জন্ম হয়।
পরবর্তীতে আজাহার আলী তার পিতার মৃত্যুর পর ছালেহার অংশের জমি সহ ভোগদখল করেন। এদিকে ছালেহার বিয়ে হলে স্বামীর সংসারে তার এক পূত্র ছলেমান আলী ও এক কন্যা জেলেখার জন্ম হয়। পরে ছালেহার মৃত্যুর পর থেকে তার সন্তানেরা অদ্যাবদি মায়ের অংশের দাবী করলেও কোন ফল পায়নি। পরবর্তীতে লালন মামুদের সম্পত্তি তার কন্যা ছালেহার ওয়ারিশ পূত্র ছলেমানকে বুঝিয়া না দিয়ে আজাহার আলী আত্নসাৎ করেন।
তাই ছলেমান মিয়া শ্রবণ প্রতিবন্ধী হওয়ায় পরবর্তীতে আজাহার আলীসহ তার পরিবারের দশ জনের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেন শ্রবণ প্রতিবন্ধির মেয়ে ছালমা বেগম।

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category
© All rights reserved © 2019 Jaldhaka IT Park
Theme Customized By LiveTV